কংগ্রেসের আশংকাই সত্যি হলো – ফায়জারের টিকা নিয়ে নরওয়েতে ২৩ জনের মৃত্যু – ভারত কি ভাবছে

আনন্দ মুখোপাধ্যায় :: সংবাদ প্রবাহ টিভি :: ১৬ই,জানুয়ারি :: কোলকাতা ::

আজ শনিবারই দেশজুড়ে শুরু হয়েছে গণ টিকাকরণ। ভারতে তৈরি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা কোভিশিল্ড দিয়েই সূচনা হয়েছে ভ্যাকসিন দেওয়ার অভিযান। টিকা হিসেবে ছাড়পত্র পেয়েছে

কোভ্যাক্সিনও। কিন্তু এখনও তা ট্রায়ালে থাকায় সেটি নিয়ে নানা মতভেদ ও বিরোধিতা রয়েছে। তাছাড়া দুটি টিকাকেই ‘বিজেপির টিকা’ বলে কটাক্ষ করে আসছে কংগ্রেস। এর কার্যকারিতা ও সুরক্ষা নিয়েও প্রশ্ন তোলা হয়েছে বারবার।

পালটা বিজেপি দাবি করেছে, সাধারণ মানুষের মধ্যে টিকা নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি করতে ইচ্ছাকৃতভাবেই এমনটা করছে বিরোধীরা। এতে বিজ্ঞানী ও গবেষকদের অপমান করা হয়েছে বলেও সুর চড়ায় গেরুয়া শিবির। তাতেও আক্রমণ থামেনি বিরোধীদের। এবার স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে নরওয়ের ঘটনা মনে করিয়ে কড়া হুঁশিয়ারি দিলেন মণীশ তিওয়ারি। বলে দেন, টিকা নিয়ে তাঁদের সন্দেহ প্রকাশের কারণ কাল্পনিক নয়, অত্যন্ত বাস্তব।

দেশজুড়ে করোনার গণ টিকাকরণের প্রথমদিন ১ লক্ষ ৯১ হাজার ১৮১ জন কোভিড যোদ্ধাকে ভ্যাকসিন দেওয়া হল। দীর্ঘদিনের প্রতীক্ষার পর অবশেষে আজ ভারতের অত্যন্ত স্বস্তির দিন। বলছেন হর্ষ বর্ধন। কিন্তু সত্যিই কি তাই,সত্যিই কি স্বস্তির ? তাই যদি হয় তবে ফাইজারের টিকা নিয়ে ইউরোপে

আজ কি ভয়ঙ্কর ঘটনা ঘটে গেলো

বহুল আলোচিত ফাইজার-বায়োএনটেক কোম্পানি উদ্ভাবিত করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন গ্রহণের নরওয়ের ২৩ জন নাগরিকের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে।আমেরিকার ফাইজার এবং জার্মানির বায়োএনটেক কোম্পানি উদ্ভাবিত এই টিকা গ্রহণের পর যে ২৩ জন নরওয়ের নাগরিক মারা গেছে তাদের ১৩ জনের বয়স ৮০ বছরের বেশি। টিকা গ্রহণের পর তাদের জ্বর-সহ আরো বেশ কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়।নরওয়ের মেডিসিন এজেন্সি বলেছে, ধারণা করা হচ্ছে ফাইজার-বায়োএনটেক কোম্পানির এই টিকা বয়স্ক মানুষের জন্য মারাত্মক রকমের প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে।এজেন্সির মেডিক্যাল ডিরেক্টর স্ট্রেইনার ম্যাডসেন সাংবাদিকদের বলেছেন, এই ঘটনার পর এখন ডাক্তারদের বিবেচনায় নিতে হবে যে, কাকে টিকা দেয়া হবে আর কাকে দেয়া হবে না।নরওয়ের ইনস্টিটিউট ফর পাবলিক হেলথ বলছে, এই টিকা গ্রহণের পর ২৩ জনের মৃত্যুর ঘটনার মধ্যদিয়ে এই ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে যে, ফাইজার-বায়োএনটেক কোম্পানির ভ্যাকসিন গ্রহণের পর সামান্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও মারাত্মক পরিণতি বয়ে আনতে পারে।

এর পরও কি বলতে হবে এতদিন ধরে কংগ্রেস যে সাবধানবাণী দিয়ে আসছে তার কোনো ভিত্তিই নেই ? তা কি নিছকই বিরোধিতা করার স্বার্থেই ? আমাদের দেশেরও একটি ভ্যাকসিন পর্যাপ্ত প্রয়োগ ছাড়াই বাজারে আসার জন্য তৎপর । আমাদের স্বাস্থ দপ্তরকে এই নিয়ে ভাবনা চিন্তা করতে হবে মাস ভ্যাক্সিনেশনের আগে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nineteen − ten =