সংবাদ প্রবাহ নিউজ ডেস্ক :: ৬ই,জানুয়ারি :: কোলকাতা :: দেশে জুড়ে মানুষ যখন করোনার টিকা শুরু হবার আশায় দিন গুনছে ঠিক তখনই দুঃসংবাদ রাজস্থানে দেখা দিয়েছে বার্ড ফ্লু ।

বার্ড ফ্লু নিয়ে ইতিমধ্যেই অন্যান্য রাজ্যকেও সতর্ক করেছে কেন্দ্র। বার্ড ফ্লু এতই মারাত্মক হতে পারে যে এর প্রকোপে মানুষের মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।

কীভাবে এই রোগ ছড়ায় ?

আক্রান্ত ব্যক্তির প্রত্যক্ষ সংস্পর্শে অন্য ব্যক্তির মাঝে বার্ড ফ্লু ছড়াতে পারে। আক্রান্ত পাখির ডিম বা গোশত সঠিকভাবে সিদ্ধ করে না খেলে বার্ড ফ্লু হতে পারে। এটি ভাইরাসজনিত একটি ছোঁয়াচে রোগ। বার্ড ফ্লু নির্ণয়ের ক্ষেত্রে, রক্তে এই ভাইরাসের অ্যান্টিবডি পিসিআর পদ্ধতিতে দেখে ভাইরাসটি শনাক্ত করা যায়।হাঁস বা মুরগি বা অন্যান্য পাখি ধরা বা নাড়াচাড়া করা উচিত নয়। অসুস্থ হাঁস, মুরগি বা অন্যান্য পাখিদের শিশুদের থেকে দূরে রাখতে হবে। ১৯৯৭ সালে প্রথম এই H5N1 ভাইরাসের খবর প্রকাশ্যে আসে

কী কী লক্ষণ দেখে বুঝবেন যে বার্ড ফ্লু হয়েছে?

এই ভাইরাস সংক্রমণের পর রোগীর দেহে প্রাথমিকভাবে জ্বরের লক্ষণ প্রকাশ পায়। জ্বর, গা ব্যথা, গা ম্যাজম্যাজ করা, ঠাণ্ডা লাগা, হাঁচি, কাশি, মাথাব্যথা, মাংসপেশি ব্যথা, বমি, পেট খারাপ এই ধরনের উপসর্গ থাকে। অনেকের ক্ষেত্রে এই লক্ষণ খুব বেশি দেখা যায়। মৃত্যুর ঝুঁকিও থাকতে পারে। এনসেফেলাইটিস, হৃদপিণ্ডের সংক্রমণ, মায়োসাইটিস হয়। বার্ড ফ্লু-র জন্য প্রয়োজনীয় অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল ওষুধ রয়েছে।

রাজস্থান: রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে বার্ড ফ্লু। ঝালওয়ারা জেলায় ১০০ পাখি মৃত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছে। প্রাথমিক তথ্য অনুসারে, বার্ড ফ্লুতে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার জন্য এইচ 5 এন 1 ভাইরাস দায়ী। এখনও অবধি প্রাপ্ত তথ্য জানাচ্ছে, এখানে প্রায় ১০০ টি কাকের মৃত্যু হয়েছে।

মধ্যপ্রদেশ: এখানকার মন্দসৌরে ১০০ টি কাকের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। প্রশাসন মঙ্গলবার মুরগি এবং ডিম বিক্রির দোকান ১৫ দিনের জন্য বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে। এখানকার কাকগুলিতে বার্ড ফ্লু সনাক্তকরণ হয়েছে।

কেরল : এখানকার আলাপ্পুজা ও কোট্টায়াম জেলায় বার্ড ফ্লু ধরা পড়েছে। প্রশাসন কুলিং পদ্ধতি চালু করেছে। যেসব অঞ্চলে সংক্রমণ ধরা পড়েছে, প্রশাসন সে সব অঞ্চলে হাঁস-মুরগির মাংস এবং মাংস সম্পর্কিত অন্যান্য পণ্য বিক্রয় ও ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে। এই অঞ্চলে আরও সংক্রমণ রোধ করতে 30,000 এরও বেশি পাখি মেরে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

গুজরাত : গুজরাতের জুনাগড়ে ৫৩ টি পাখির মৃতদেহ পাওয়া গিয়েছে। এরপর থেকেই জেলার বন ও বন্যপ্রাণী কর্মকর্তারা সজাগ রয়েছেন। আধিকারিকরা জানাচ্ছেন, এর কারণ বার্ড ফ্লু হতে পারে।

হরিয়ানা : ৫ ডিসেম্বর থেকে হরিয়ানার রায়পুর রানীতে কয়েকশ মুরগি মারা গেছে। জলন্ধরের ল্যাবে নমুনা পাঠানো হয়েছে, তবে এখনও রিপোর্ট পাওয়া যায়নি।

হিমাচল প্রদেশ / পাঞ্জাব: হিমাচল প্রদেশের বিখ্যাত পং ড্যাম অভয়ারণ্য এবং এর আশেপাশে পাখি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। জলন্ধর, পালামপুর এবং ভোপালের ল্যাব নমুনায় H5N1 ভাইরাস নিশ্চিত করেছে। এখনও অবধি এভিয়ান ফ্লুতে মারা গেছে ১,৯০০ এরও বেশি পরিযায়ী পাখি।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here