কাঁকুলিয়া জোড়া হত্যাকাণ্ডে নয়া মোড়, ডায়মন্ডহারবারে খালে মোবাইলের সন্ধানে ডুবুরি ।।

সুদেষ্ণা মন্ডল :: সংবাদ প্রবাহ :: ডায়মন্ডহারবার :: গরিয়াহাটের কাঁকুলিয়া জোড়া হত্যাকাণ্ডে নয়া মোড় । বিশেষ তথ্য প্রমাণ সংগ্রহ করতে ডায়মন্ডহারবার ক্রিক খালে নামানো হলো ডুবুরি। কর্পোরেট কর্তা সুবীর চাকি ও তার গাড়ির চালক খুনের ঘটনায় এখনো পর্যন্ত মোট পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে লালবাজারের গোয়েন্দা শাখার পুলিশ। এই হত্যাকাণ্ডের মূল অভিযুক্ত ভিকি হালদার ও তার মা মিঠু হালদারকে জিজ্ঞাসাবাদের করে কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে কলকাতা পুলিশের হোমিসাইড শাখায় তদন্তকারীদের কাছে।

তদন্তকারী অফিসাররা ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদের পর জানতে পরে জানতে পরে খুনের পর তথ্য প্রমাণ লোপাট করতে সুবীর চাকির মোবাইল ফোন নিয়ে নেয় ভিকি। গরিয়াহাট থেকে ট্রেনে করে ডায়মন্ডহারবারে পৌঁছায় ভিকি ও তার সঙ্গীরা। তথ্য প্রমাণ লোপাট করতে ভিকি সুবীর চাকরির মোবাইল ফোন ডায়মন্ডহারবারের ক্রিক খালে ফেলে দেয়।

কলকাতা পুলিশের হোমিসাইড শাখা তদন্তকারী অফিসারদের দাবি, সুবীর চাকির মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে, এই ঘটনার খুনের সঙ্গে আর অন্য কেউ জড়িত আছে কিনা সেই বিষয়ে আরো তথ্য পাওয়া যাবে ।

ভিকির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, শনিবার সকালে হোমিসাইড শাখার পুলিশ ও ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট গ্রুপ মোবাইল ফোন উদ্ধার করার জন্য অন্যতম অভিযুক্ত ভিকি হালদারকে ডায়মন্ডহারবার নিয়ে আসে। ভিকি, খুনের পর কোন জায়গায় ফোনটি ফেলেছে তা চিহ্নিত করে দেয় । এরপরে দুজন ডুবুরি জলে নেমে তল্লাশি অভিযান চালায়। প্রায় দু’ঘণ্টা তল্লাশি অভিযান চালানোর পরও মোবাইলের কোনো সন্ধান পাওয়া যায়না । এই খালটিতে জলের স্রোত বেশি থাকার কারণে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে গোয়েন্দাদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *