কাটমানি আদায়ের জন্য হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠল পূর্ব বর্ধমানের শাসকদলের যুবনেতার বিরুদ্ধে।

উদয় ঘোষ :: সংবাদ প্রবাহ :: বর্ধমান :: দলনেত্রী একাধিকবার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। দলের নেতারাও পইপই করে নিষেধ করেছেন। তবুও আবারও কাটমানি আদায়ের জন্য হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠল পূর্ব বর্ধমানের শাসকদলের যুবনেতার বিরুদ্ধে। যাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ তাঁর নাম মানস ভট্টাচার্য। তিনি দলের বর্ধমান–১ ব্লকের দোর্দণ্ডপ্রতাপ যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি। পাশাপাশি তিনি বর্ধমান–১ পঞ্চায়েত সমিতির পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ। অভিযোগকারী আবার দলনেত্রীরই অনুগামী।

এরপর টুটুলবাবুকে তাঁর বাড়ি পাঁচিল দিতে পরামর্শ দেন নেতা। সেই পরামর্শ মেনে নিয়ে মালপত্র কিনেই বিপদে পড়ে যান টুটুলবাবু। তাঁর আরও অভিযোগ, এরপর তাঁর কাছে সরাসরি ৫০ হাজার টাকা চেয়ে বসেন ওই নেতা। টুটুলবাবুর পক্ষে এত টাকা দেওয়া কঠিন জানিয়ে তিনি ২০ হাজার টাকা দিয়ে আসেন। তারপর ব্যাপারটা নিষ্পত্তি করতে ওই নেতাকে ফোন করেন তিনি।

অভিযোগ, এরপরই ওই নেতা তাঁকে সাফ জানিয়ে দেন, পুরো টাকাই দিতে হবে। এক টাকাও কম দেওয়া যাবে না। এতে অনুনয় বিনয় করলে তিনি জানান, তাঁকে এলাকা ঠিক রাখতে হয়। তাঁর বিরুদ্ধে যেখানে খুশি অভিযোগ করা যেতে পারে। তাতে কিস্যু লাভ হবে না। এই গোটা কথোপকথন কল রেকর্ড করে রাখা আছে।

নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এমন কয়েকজন জানান, ওই যুবনেতার নামে গ্রামে আরও কিছু অভিযোগ আছে। রায়ান গ্রামে কোনও কিছু করতে গেলেই তাঁর হুকুম মানতে হয়। অভিযুক্ত ওই নেতাকে ফোন করলে তিনি পরে কথা বলবেন বলে জানান। দলের জেলা সভাপতি রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় বলেন, আমাদের কাছে ওই নেতার বিরুদ্ধে কেউ অভিযোগ করেননি। অভিযোগ করলে দল তা খতিয়ে দেখবে। তাতে দোষী প্রমাণিত হলে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *