গোয়ায় নতুন ভোর আসুক’ – মমতা

নিউজ ডেস্ক :: সংবাদ প্রবাহ :: গোয়া :: গোয়ায় তৃণমূল নেতাকর্মীদের ওপর আক্রমণের অভিযোগ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। এদিকে বৃহস্পতিবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গোয়া বিমানবন্দরে নামার পরই তাকে কালো পতাকা দেখান বেশ কয়েকজন৷ মমতার ছবি দেওয়া তৃণমূলের হোর্ডিং, পোস্টারও ছিঁড়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে বিজেপির বিরুদ্ধে।এ প্রসঙ্গে শুক্রবার তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘এগুলো ভাল লক্ষণ। তার মানে ওরা ভয় পেয়েছে। ওদের কোনও সংস্কৃতি নেই৷ কাল বিমানবন্দরের বাইরে কুড়ি, পঁচিশজন আমাকে কালো পতাকা দেখালো। আমি পাল্টা নমস্কার করেছি। গোয়ার মানুষ বিজেপিকে খুব শিগগিরই ব্ল্যাকলিস্ট করবে।’গোয়ায় মাটিতে পা দিয়ে দলীয় বৈঠকে এসব কথা বলেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বিজেপিকে হুঁশিয়ারি দিয়ে মমতা বলেন, এ দিন গোয়ায় গিয়ে বেকারত্ব, মূল্যবৃদ্ধি, মৎস্যজীবীদের দুর্দশা, মহিলাদের নিরাপত্তার মতো ইস্যু নিয়ে সরব হন মুখ্যমন্ত্রী৷ গোয়ায় তৃণমূল যে মহিলাদের ক্ষমতায়ণের উপরে জোর দেবে, তাও স্পষ্ট করে দিয়েছেন তৃণমূলনেত্রী৷ তৃণমূল ক্ষমতায় এলে গোয়ায় মহিলা এবং যুব সম্প্রদায়ের উন্নতিতে সবথেকে বেশি জোর দেবে বলেও জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

কংগ্রেসসহ অন্যান্য দলগুলোকে ইঙ্গিত দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, অন্যান্য দলগুলির মতো বিজেপির কাছে বিক্রি হবে না তৃণমূল। কংগ্রেসের নাম না করে তিনি অভিযোগ করেন, ‘আপনারা দেরি করেছিলেন বলেই বিজেপি এখানে সরকার গঠন করেছিল৷ ফের সেরকম হবে না তার নিশ্চয়তা কী? আমরা কীভাবে আপনাদের বিশ্বাস করব? গোয়ার মানুষ আমাদের বিশ্বাস করলে গোয়ার উন্নয়নে তৃণমূল নিজেদের একশো শতাংশ দেবে৷ ‘

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা জানিয়েছেন, এবার থেকে মাঝেমধ্যেই গোয়ায় আসবেন তিনি। ওই দিনই গোয়ায় তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন অভিনেত্রী নাফিসা আলি এবং টেনিস তারকা লিয়েন্ডার পেজ।

গোয়ায় দিল্লির দাদাগিরি চলবে না বলে বিজেপি নেতাদের হুশিয়ারি দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘আমি গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী হতে আসিনি৷ কিন্তু দিল্লির দাদাগিরি আর চলবে না। গোয়ায় নতুন ভোর আসবে।’

আমি দেখতে চাই দুর্নীতিমুক্ত, নীতি পরায়ণ, মানুষের জন্য কাজ করবে এমন সরকার গোয়ায় ক্ষমতায় আসুক৷ গোয়ার সরকার গোয়ার মানুষের দ্বারা এবং গোয়ার মানুষের জন্যই কাজ করবে৷ আমরা শুধু বাইরে থেকে সাহায্য করব৷ সেটা কীভাবে করতে হয় আমরা জানি৷’
মমতা আরও বলেন, ‘গোয়ার সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গে তিনটি বিষয়ে মিল আছে- মাছ, ফুটবল আর লোকসংস্কৃতি ভালবাসে দুই রাজ্যই। আমি গোয়ায় বহিরাগত নই৷ আমি একজন ভারতীয়৷ দেশের যে কোনও প্রান্তে আমি যেতে পারি৷ বাংলা আমার মাতৃভূমি হলে গোয়াও আমার মাতৃভূমি৷’

মমতা আরও বলেন, ‘বাংলা এখন অত্যন্ত শক্তিশালী একটি রাজ্য৷ আমরা চাই গোয়াও সেরকম শক্তিশালী হয়ে উঠুক, গোয়ায় নতুন ভোর আসুক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *