কুমার পঙ্কজ :: সংবাদ প্রবাহ :: নয়াদিল্লি :: লাদাখ সীমান্তে চীন ও ভারতের সেনাসদস্যরা সব সময় মুখোমুখি অবস্থানে থাকেন। দুই দেশই থাকে তক্কে তক্কে। এবার সেই লাদাখ সীমান্তে চীনকে মোকাবিলায় ‘কে-৯ বজ্র’ কামান মোতায়েন করেছে ভারত। আর এতে দেশটির সামরিক বিশ্লেষকদের ধারণা, নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর চীনের ঘাঁটিগুলো অত্যাধুনিক ও বিধ্বংসী এই ট্যাংক কামানের নিশানার মধ্যেই থাকবে।

গালওয়ান উপত্যকায় সংঘর্ষের পরও লাদাখে সেনা মোতায়েনসহ নানা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে চীন। তাই এর পালটা জবাব হিসেবে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর তৎপরতা শুরু করে ভারতও। সেই ধারাবাহিকতায় এবার সীমান্তে কে-৯ বজ্র মোতায়েন করে ফেলল ভারত। গতকাল শনিবার ভারতের সেনাপ্রধান জেনারেল মনোজ মুকুন্দ নারভানে জানান, সীমান্তে কে-৯ বজ্র কামানের একটি রেজিমেন্ট মোতায়েন করা হয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার অস্ত্র নির্মাতা সংস্থার প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ভারত এ কামানগুলো তৈরি করেছে। ভারতের হাতে এখন ১০০টি বজ্র কামান আছে। প্রায় ৫০ কিলোমিটার দূরের লক্ষ্যে আঘাত হানতে সক্ষম এ কামানগুলো। রাজস্থান ও পাঞ্জাব সীমান্তে ব্যবহারের জন্য কে-৯ বজ্র কামান তৈরি করা হয়েছিল। তবে লাদাখের বর্তমান অবস্থান কথা চিন্তা করে কামানগুলোয় কিছুটা বদল ঘটানো হয়েছে। আর বদলের উদ্দেশ্য হলো পাহাড়ি অঞ্চলে যেন এগুলো কাজ করতে পারে। এর আগে কারগিল সীমান্তে কে-৯ বজ্র কামানের সফল পরীক্ষা শেষ করে ভারতের সেনাবাহিনী।

সীমান্ত নিয়ে গত বছর থেকেই ভারত ও চীনের মধ্য নানা টানাপোড়েন চলছে। দুপক্ষের মধ্যে সীমান্ত নিয়ে নানা বৈঠকের পরও সমস্যার কোনো সমাধান হয়নি। সীমান্তে সেনা মোতায়েনসহ নানা কর্মকাণ্ডের কথা প্রায়ই শোনা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here