নিউজ ডেস্ক :: সংবাদ প্রবাহ :: আগরতলা :: তৃণমূলের যুব সভানেত্রী সায়নী ঘোষকে গ্রেফতার করল ত্রিপুরা পুলিশ। তৃণমূলের যুব সভানেত্রীকে থানায় তলবে করে দীর্ঘক্ষণ জিজ্ঞাসাবাদের পর তাঁকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাঁর বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার অভিযোগ আনে পুলিশ। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৭ ধারায় তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে সূত্রের খবর।

রবিবার সকালেই ত্রিপুরা পুলিশ তৃণমূল নেতা-নেত্রীরা যে হোটেলে ছিলেন, সেখানে হানা দেয়। যুব তৃণমূলের রাজ্য সভানেত্রীকে থানায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু বঙ্গ তৃণমূলের সম্পাদক তথা মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বাধা দেন। তিনি নোটিশ দেখাতে বলেন। কোন অভিযোগে তাঁকে থানায় তলব করা হচ্ছে, তা জানতে চান। ত্রিপুরা পুলিশ কোনও নোটিশ দেখাতে পারেনি, তারপর সায়নী ঘোষকে অনুরোধ করা হয় থানায় আসার জন্য ।

ত্রিপুরা পুলিশের সেই অনুরোধ মেনে সৌজন্যের খাতিরে সায়নী গিয়েছিলেন আগরতলা পূর্ব মহিলা থানায়। সেখানে দীর্ঘক্ষণ তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের পর গ্রেফতার করা হয়। তাঁকে খুনের চেষ্টার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়। তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেন, সম্পূর্ণ মিথ্যা অভিযোগে হোটেল থেকে ডেকে এনে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ত্রিপুরার পুলিশ বিজেপির দলদাসে পরিণত হয়েছে। যাঁরা হামলা চালাল তাঁরা গ্রেফতার হল না। আর যিনি গাড়িতে বসে খেলা হবে বললেন তিনি খুনের চেষ্টার অভিযোগে গ্রেফতার। আজব কাণ্ড ত্রিপুরা পুলিশের।

শনিবার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সভাস্থলের পাশ দিয়ে যখন যাচ্ছিল সায়নী ঘোষের গাড়ি, তখন বাইরে থেকে কেউ একজন বলেন দিদি খেলা হবে। সায়নী ঘোষের উদ্দেশে তা বলার পর সায়নীও বলেন, খেলা হবে। তারপর সায়নীর গাড়িতে হামলার চেষ্টা হয়। গাড়িতে ধাক্কা দিতে শুরু করেন কর্মী সমর্থকরা। এই ঘটনায় সায়নী বিজেপি কর্মীদের উত্তপ্ত করেছেন বলে অভিযোগ ওঠে। তাঁর বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার অভিযোগে তাঁকে শেষপর্যন্ত গ্রেফতার করা হয়। যিনি গাড়ি থেকেই নামলেন না, গাড়িতে বসে শুধু খেলা হবে স্লোগান দিলেন, তাঁকে গ্রেফতার করা হল বিপ্লব দেবের জঙ্গলরাজ ত্রিপুরায়।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here