নিউজ ডেস্ক :: সংবাদ প্রবাহ :: আগরতলা :: অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পর এবার ত্রিপুরায় হামলার শিকার হয়েছেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী ও রাজ্যসভার সদস্য সুস্মিতা দেব। বিজেপি শাসিত রাজ্যটিতে নতুন উদ্যমে তৃণমূলের নির্বাচনী প্রচার শুরুর আগে শুক্রবার সুস্মিতা দেবের গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। হামলায় তৃণমূলের সাত থেকে আটজন কর্মী, নির্বাচনী পরামর্শক সংস্থা—আইপ্যাকের কর্মীরাও আহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে তৃণমূল। অন্যদিকে বিজেপি বলেছে, তৃণমূলের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব থেকে হামলার এই ঘটনা ঘটেছে।

পশ্চিমবঙ্গের পরে এবার ত্রিপুরায় তৃণমূলের শক্তি বাড়াতে চাচ্ছেন দলটির নেত্রী ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২০২৩ সালের রাজ্য বিধানসভা নির্বাচন সামনে রেখে ত্রিপুরায় নতুনভাবে সক্রিয় হয়েছে তৃণমূল। সুস্মিতা দেব দলটির অন্যতম সংগঠক হিসেবে ত্রিপুরায় কাজ করছেন। তিনি কিছুদিন আগে কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন।

করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কার কথা জানিয়ে গত সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝিতে তৃণমূলকে মাসখানেকের জন্য ত্রিপুরায় প্রচার বন্ধ রাখতে বলেছিল স্থানীয় প্রশাসন। সেই সময় তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচারে যাওয়ার কথা থাকলেও তা স্থগিত হয়ে যায়। তৃণমূল এখন নতুন করে অভিষেকের প্রচার নিয়ে পরিকল্পনা করতে শুরু করেছে। বৃহস্পতিবার থেকে এই লক্ষ্যে ত্রিপুরার রাজধানী আগরতলায় জনসংযোগ শুরু করেছেন দলটির নেতা-কর্মীরা।

নির্বাচনী প্রচারের কৌশল নিয়ে শুক্রবার আইপ্যাকের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক চলাকালে হামলা হয় বলে জানিয়েছেন সুস্মিতা দেবী। তিনি বলেছেন, কেন্দ্রের আধা সামরিক বাহিনীর সামনেই একদল ছেলে মুখ না ঢেকেই তাঁদের ওপরে হামলা চালান। তৃণমূলের অভিযোগ, ত্রিপুরায় প্রায় নিয়মিতই তাদের কর্মীদের ওপর হামলা হচ্ছে। হামলায় অনেকেই আহত হয়েছেন। এ ছাড়া কর্মীদের বাড়িঘর, দোকানপাটও ভাঙচুর করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here