কুমার মাধব :: সংবাদ প্রবাহ :: মালদা :: নদীয়ার রোড ব্লকে চিকিৎসা করতে যাওয়া মালদার এক শিশুর মৃত্যু। মৃত শিশুর বাড়ি মালদার মোথাবাড়ি থানা এলাকা। মালদা থেকে চিকিৎসার জন্য অ্যাম্বুলেন্সে করে চিকিৎসার জন্য কলকাতায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। পথে নদীয় রাস্তা অবরোধে আটকে যায় অ্যাম্বুলেন্স পথে মৃত্যু হয় ওই শিশুর।

জানা গিয়েছে মৃত শিশুর নাম সাকিবুল শেখ(৭)। বাড়ি মোথাবাড়ি থানার বাঙিটোলা এলাকার জোত অনন্তপুর গ্রামে। সে বিদ্যাসাগর শিশু শিক্ষা নিকেতনের প্রথম শ্রনীর ছাত্র। পরিবারের সদস্য আমিনুল শেখ জানান,মঙ্গলবার বিকেলে বাড়ির ছাদে খেলা করছিল। সেই সময় সে ছাদ থেকে পরে যায়।

তার বাম দিকে মাথায় আঘাত লাগে। তরিঘরি তাকে উদ্ধার করে মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসে মেডিক্যালের কর্তব্যরত েডিক্যালের চিকিৎসকেরা তাকে কলকাথার এস এস কে এম এ স্থানান্তর করে। তারা এখান থেকে রওনা হয় কলকাতার উদ্দ্যোশে।

পথে কৃষ্ণনগর এলাকায় জাতীয় সড়ক অবরোধ করে স্থানীয়রা। সেখানে আটকে পরে অ্যাম্বুলেন্সটি। তাদেরকে বার বার অনুরোধ করা হলেও তারা অ্যাম্বুলেন্সটি ছাড়েনি তারা। প্রায় দুই ঘন্টা আটকে থাকে অ্যাম্বুলেন্সটি। ফলে মৃত্যুর কোলে ঢোলে পরে শিশুটি। সেখান থেকে বাড়িতে ফিরিয়ে আনে শিশুটিকে। পরাবারের দাবি যারা পথ অবরোধ করেছে তাদের কঠোর শাস্তির দাবি জানাই।

বাঙিটোলা গ্রামপঞ্চায়েতের প্রধান তহিদুর রহমান জানান,ঘটনাটি দুঃখজনক ঘটনা। কোন জায়গায় পথ অবরোধ হলেও অ্যাম্বুলেন্স ছাড়বে না এমন ঘটনা হয়না। যারা এই পথ অরোধে যক্ত ছিল তাদের গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। প্রয়োজনে আইনী পথে হাঠবো আমরা।