নিউজ ডেস্ক :: সংবাদ প্রবাহ :: নয়াদিল্লি :: রাজ্য দুভাগ ও সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ খারিজের ২৬ মাস পর ৩ দিনের জম্মু-কাশ্মীর সফরে এলেন ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। শনিবার বিশেষ বিমানে শ্রীনগরে পৌঁছানোর পর তাঁকে স্বাগত জানান উপরাজ্যপাল মনোজ সিনহা। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাওয়ার পর অমিত শাহর এই প্রথম জম্মু-কাশ্মীর সফর।রবিবার তিনি যাবেন জম্মু। সোমবার ফিরে যাবেন দিল্লি। এই সফরে কেন্দ্রশাসিত এই উপদ্রুত অঞ্চলের নিরাপত্তাসহ অন্যান্য সরকারি কর্মকাণ্ড তিনি খতিয়ে দেখবেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এই সফর অনেক দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ। আফগানিস্তানে পালাবদলের পর উপত্যকার পরিস্থিতি দ্রুত খারাপ হয়েছে। পুঞ্চ এলাকায় সশস্ত্র জঙ্গিদের সঙ্গে সেনাবাহিনীর লড়াই চলছে টানা ১৩ দিন। জঙ্গি আক্রমণে নিহত হয়েছেন ৯ জন ভারতীয় জওয়ান। তিন দিকে নিয়ন্ত্রণরেখা থাকা এই জেলায় জঙ্গি আক্রমণের পেছনে পাকিস্তানি হাত রয়েছে বলে গোয়েন্দাদের বিশ্বাস। জঙ্গিরা কাশ্মীর উপত্যকায় তাদের কৌশলও বদলেছে। শুরু করেছে বেছে বেছে হিন্দু ও শিখ হত্যা। অক্টোবর মাসেই বিভিন্ন এলাকায় এভাবে ১১ জন হিন্দু ও শিখকে খুন করেছে জঙ্গিরা।

চলতি বছরে নিহত নাগরিকের সংখ্যা ৩২। ৩২ বছর আগে এমন বাছাই হত্যার মধ্য দিয়ে উপত্যকা থেকে হিন্দুদের বিতাড়িত করেছিল সশস্ত্র জঙ্গিরা। উদ্বাস্তু হয়েছিলেন প্রায় পাঁচ লাখ হিন্দু ও শিখ। এবারও এই বাছাই হত্যার পর উপত্যকা ছেড়ে যেতে শুরু করেছেন হিন্দু ও শিখ সম্প্রদায় এবং বিহার, ছত্তিশগড়ের শয়ে শয়ে পরিযায়ী শ্রমিক, যাঁরা বিভিন্ন নির্মাণ প্রকল্পের কাজে যুক্ত। এই পরিস্থিতিতেই অমিত শাহর সফর।

সফর সফল ও নিরুপদ্রব করতে নিরাপত্তা নিশ্ছিদ্র করা হয়েছে। শাহ শ্রীনগরে থাকবেন রাজভবনে। তার ২০ কিলোমিটার ব্যাসার্ধ ঘিরে গড়ে তোলা হয়েছে নিরাপত্তা বলয়, যেখানে সাধারণের প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ডাল লেক ও শহরের স্পর্শকাতর এলাকাগুলোয় শুক্রবারই শুরু হয়েছে ড্রোন দিয়ে নজরদারি। ডাল লেক ও ঝিলম নদীতে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাহিনীর টহল চলছে দিনরাত। রাস্তায় রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় মোতায়েন করা হয়েছে দক্ষ বন্দুকবাজদের।

সিআরপিএফের বড় কর্তা ম্যাথু জন এনডিটিভিকে বলেছেন, ‘আমরা কোনো সুযোগ নিতে চাই না। মানুষজনকে বলছি, তাদের নিরাপত্তার জন্যই এত কড়াকড়ি।’ নিরাপত্তা নিশ্ছিদ্র করতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর মোট ৫০টি দলকে নতুনভাবে কাজে লাগানো হয়েছে।

সাম্প্রতিক হত্যাকাণ্ডের পর উপত্যকা থেকে ৭০০ জনকে আটক করা হয়েছে। তাঁদের কাউকে কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে জননিরাপত্তা আইনে। এই আইনে ২৮ জন বন্দীকে উপত্যকা থেকে সরিয়ে আগ্রা জেলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।সূত্রের খবর, বাছাই হত্যা বন্ধ করে ভরসা ফেরানোর ওপর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জোর দেন।

শ্রীনগর থেকে আমিরাতের শারজায় সরাসরি বিমান পরিষেবা চালু করা হচ্ছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তার উদ্বোধন করেন।