নিউজ ডেস্ক :: সংবাদ প্রবাহ ::পূর্ব মেদিনীপুর ::  কালীপুজোর রাতে  চোলাই মদ খেয়ে মৃত্যু হল এক যুবকের। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের সবং ব্লকের ৪ নং দশগ্রাম অঞ্চলের খাজুরি এলাকার দীঘিপাড়ায়। এই ঘটনায় আবগারি দপ্তর ও প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন স্থানীয়রা।

সবংয়ের দশগ্রাম অঞ্চলের বাসিন্দা পেশায় দিনমজুর মধু মল্লিক। বয়স মাত্র ২৩ বছর। তাঁর দুই ছেলেও রয়েছে। জানা গিয়েছে, প্রতিদিনের মতোই বৃহস্পতিবারও দিনমজুরের কাজ সেরে বাড়ি ফেরে মধু। তারপর এলাকায় বসেই চোলাই মদ খায়। অভিযোগ, মদ্যপ অবস্থায় বাড়িতে ফিরে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে অশান্তিও করে মধু।

এরপর বাড়ির সদস্যদের নজর এড়িয়ে হাড়ি-সহ বাড়ির বহু জিনিসপত্র ও সাইকেল বিক্রি করে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। মধ্যরাতে হাজির হয় শ্বশুরবাড়ি। সেখানে গিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে অশান্তি করে সে। এর কিছুক্ষণ পরই ওই যুবক অসুস্থ হয়ে পড়ে।

সেখানেও প্রচুর পরিমাণে মদ্যপান করে তারপরই অসুস্থ হয়ে মৃত্যু হয়।পরিবারের সদস্যরা মধুকে উদ্ধার করে তড়িঘড়ি স্থানীয় একটি চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়ার সময় পথে মৃত্যু হয় তাঁর। এই ঘটনায় ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন স্থানীয়রা। তাঁদের অভিযোগ, দশগ্রাম অঞ্চলের খাজুরি বুথ, হরেকৃষ্ণ বুথ এলাকায় কিছু অসাধু ব্যক্তি বহুদিন যাবৎ চোলাই মদের কারবার চালাচ্ছে।

চোলাই মদের হোম ডেলিভারির ব্যবস্থাও চলছে গোপনে। এর ফলে গ্রামের পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। কম বয়সি ছেলেরা নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়ছে। এই মদের জেরে বাড়ছে দাম্পত্যকলহও। আবগারি দপ্তর ও প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলছে এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here