নিজস্ব সংবাদদাতা :: সংবাদ প্রবাহ :: নয়াচর :: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নয়াচরে ফিশিং হাব গড়ে তোলার নির্দেশ দিয়েছিলেন গত ১৮ ই নভেম্বর হাওড়ার প্রশাসনিক বৈঠক থেকে। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে বুধবার নয়াচর পরিদর্শন করেন রাজ্যের অতিরিক্ত মুখ্য সচিব অত্রি ভট্টাচার্য্য। হলদি এবং হুগলি নদীর মোহনায় গড়ে ওঠা নয়াচরের আদি নাম আঙ্গুরমারি চর।

লম্বায় প্রায় ৩০ কিলোমিটার এবং চাওড়ায় প্রায় ১০ কিলোমিটার। বাম আমলে নয়াচরে কেমিক্যাল হাব গড়ে তোলার পরিকল্পনা করেছিল বাম সরকার। কিন্তু পরবর্তীকালে রাজ্যের ক্ষমতায় তৃণমূল সরকার আসার পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ফিশিং হাব,ইকো ট্যুরিজম সহ একগুচ্ছ উন্নয়ন মূলক প্রকল্প গড়ে তোলার কথা জানান।

নয়াচরে বর্তমানে মোট জমির পরিমাণ প্রায় ৮৩৪৩ একর। নয়াচরে প্রায় ৪০০ একর জায়গায় ৩১৬টি পুকুর খনন করা হয়েছিল। বর্তমানে সেই পুকুর গুলিতে সমবায়ের মাধ্যমে মাছ চাষ করা হয়। সমবায় ছাড়াও একাধিক জমিতে মাছের চাষ হয়। ফিশিং হাব গড়ে উঠলে সমস্ত মাছচাষীকে এক ছাতার তলায় নিয়ে আসা যাবে যেমন তেমনি ইকো ট্যুরিজম সহ অন্যান্য প্রকল্প চালু হলে পর্যটকদের আনাগোনা যেমন বাড়বে তেমনি অর্থনৈতিক পরিকাঠামোর উন্নয়ন ঘটবে।

এদিন এলাকা পরিদর্শন করার পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রাজ্যের অতিরিক্ত মুখ্যসচিব অত্রি ভট্টাচার্য জানান, এই সরকার এমন কোনো কাজ করে না যা মানুষের অকল্যাণ হবে। এলাকার মানুষের সাথে এবং মৎস্যজীবীদের সাথে কথা বলে তাদের সমস্যার কথা শুনে একটি রিপোর্ট তৈরি করে মুখ্যসচিবের হাতে তুলে দেওয়া হবে। এদিন নবান্নের আধিকারিকদের পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন পূর্ব মেদিনীপুর জেলার জেলাশাসক পূণেন্দু মাজী, পুলিশ সুপার অমরনাথ কে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here