পঞ্চায়েত মন্ত্রীর অকাল প্রয়াণে দীপাবলীর আলোর রোশনাই এর মাঝে অন্ধকার নেমেছে সারেঙ্গাবাদে

সুদেষ্ণা মন্ডল :: সংবাদ প্রবাহ :: বাটানগর :: প্রতিবছরই দীপাবলিতে তার উপস্থিতিতেই তুবড়ি প্রতিযোগিতা হত এলাকায়। ছোট-বড় সমস্ত পূজার সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে ছিলেন প্রয়াত পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। এবছর যেন দীপাবলীর আলোর রোশনাই এর মাঝখানে অন্ধকার করে চলে যাওয়ার খবর শুনে রীতিমতো কান্নায় ভেঙে পড়েছেন তার পরিচিত কাছের মানুষরা।

প্রতি সপ্তাহেই নিয়ম করে একদিন তার গ্রামের বাড়ি সারেঙ্গাবাদ আসতেন পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। ছোটবেলার বন্ধুবান্ধবদের সঙ্গে চায়ের দোকানে বসে চলত দেদার আড্ডা। বজবজের এই গ্রামের পৈত্রিক ভিটে বাড়ি থেকে রাজনৈতিক জীবনের পথ চলা শুরু করেন প্রায়ত মন্ত্রী। আর চায়ের আসরে বসেই বহু মানুষের মুশকিল আসান করতেন তাদের প্রিয় সুব্রতদা। এলাকায় মাস্টারমশাই হিসেবেও তার যথেষ্ট নামডাক রয়েছে। কারণ কলেজ ছাড়ার পর তিনি এলাকার বহু ছাত্র-ছাত্রীদের টিউশন দিতেন ।

সেই সমস্ত স্মৃতির পাতা উল্টে আজ চোখের জলে বিদায় জানাচ্ছেন বজবজের সারেঙ্গাবাদ এর মানুষ। প্রদীপ কুমার ব্যানার্জি রাজ্য কমিটির সদস্য তিনি বলেন, ছোটবেলা থেকে একসঙ্গে বড় হওয়া আমার রাজনৈতিক জীবনের শিক্ষক সুব্রত দা। প্রতিবছর কালীপুজোয় এই সারেঙ্গাবাদ আসতেন তিনি।দাদার হাত ধরে এলাকার সার্বিক উন্নয়ন ঘটেছে। এলাকায় পানীয় জল থেকে শিক্ষার আমূল পরিবর্তন ঘটিয়েছে। এলাকা মাস্টারমশাই হিসাবে যথেষ্ট নাম ছিল। বড় ভালো মানুষ ছিলেন কিন্তু এভাবে চলে যাবে আমরা মেনে নিতে পারছিনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *