‘বনগাঁ কালিতলা পার্কিং’-এ সিন্ডিকেটের থাবা, আটকে আছে ৭ হাজার ট্রাক

নিউজ ডেস্ক :: সংবাদ প্রবাহ :: বনগাঁ :: বনগাঁ কালিতলা পার্কিং’-এ প্রায় সাত হাজার পণ্যবাহী ট্রাক আটকে আছে বলে দাবি করেছেন সংশ্লিষ্ট বাংলাদেশি আমদানিকারকরা। ভারতের একটি সিন্ডিকেট নিজেদের হেপাজতে পণ্যবোঝাই এসব ট্রাক মাসব্যাপী সেখানে আটকে রেখেছে বলে অভিযোগ বাংলাদেশী আমদানিকারকদের।

ন্দো-বাংলা চেম্বার অব কমার্স সাব কমিটির পরিচালক মতিয়ার রহমান বলেন, ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে একটি শক্তিশালী চাঁদাবাজ সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে। বনগাঁ পৌরসভার মেয়রের নেতৃত্বে তার লোকজন প্রতিটি পণ্যবোঝাই ট্রাক থেকে চাঁদা আদায় করছে। প্রতিদিন ট্রাকপ্রতি ২ হাজার টাকা হিসেবে পরিশোধ করতে হচ্ছে।

বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করে ভারতের পেট্রাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টস স্টাফ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কার্তিক চক্রবর্তী বলেন, বনগাঁও পৌরসভার তত্ত্বাবধানে সিরিয়ালের নামে এসব ট্রাক কালিতলা পার্কিংয়ে ঢোকানো হচ্ছে। কালিতলা পার্কিংয়ে দীর্ঘদিন পণ্যবোঝাই ট্রাক আটকে থাকায় বাংলাদেশি আমদানিকারকদের মোটা অংকের ডেমারেজ গুণতে হচ্ছে।

বছরে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে ছয় হাজার কোটি টাকার রাজস্ব আয় করে থাকে বেনাপোল শুল্কভবন। দেশের অত্যন্ত সম্ভাবনাময় বেনাপোল বন্দর দিয়ে আগে প্রতিদিন ৪৫০ থেকে ৫০০ ট্রাক পণ্য আমদানি হলেও বর্তমানে এই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৫০ থেকে ৩০০ ট্রাক। ভারত থেকে পণ্যবাহী ট্রাকগুলি পেট্রাপোল প্রবেশের আগে এক মাসেরও বেশি সময় আটকে রাখা হয় কালিতলা পার্কিং-এ।

প্রতিটি ট্রাক থেকে দিনে ডেমারেজ বাবদ ২ হাজার টাকা করে চাঁদা আদায় করা হচ্ছে। এছাড়া জরুরী পণ্য চালান আনার জন্য সিন্ডিকেটকে দিতে হচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা। বিষয়টি সংগঠনের পক্ষে ঢাকাস্থ ভারতীয় হাইকমিশনে একাধিকবার পত্র দিয়ে জানালেও এ ব্যাপারে কোনো ফল পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

17 + 6 =