নিজস্ব সংবাদদাতা :: সংবাদ প্রবাহ :: উঃ২৪ পরগনা :: পুজো শেষ হতেই প্রচার শুরু করে দিয়েছেন প্রার্থীরা। এরইমধ্যেই এদিন খড়দহের বিজেপি প্রার্থী জয় সাহা চলে গেলেন প্রয়াত তৃণমূল নেতা কাজল সিনহার বাড়িতে। সেখানে তাঁর স্ত্রীর থেকে আশীর্বাদও নেন তিনি। যা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তৃণমূল প্রার্থী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় ।

এদিন সকালে প্রচারে বেরিয়েই বিজেপি প্রার্থী জয় সাহা প্রথমে যান কাজল সিনহার বাড়িতে। প্রয়াত তৃণমূল নেতার ছবিতে মালা দেন। এরপর কাজল সিনহার স্ত্রী নন্দিতা সিনহাকে প্রণাম করেন। নন্দিতা সিনহাও বিজেপি প্রার্থীকে মাথায় হাত দিয়ে আশীর্বাদ করেন। বিজেপি প্রার্থী পরে জানান, প্রয়াত কাজল সিনহার স্বপ্ন সফল করতেই আশীর্বাদ প্রার্থনা করেছেন তিনি এবং সেই আশীর্বাদ তিনি পেয়েছেন।

বিষয়টিকে সামনে থেকে সৌজন্যতা হিসেবে বলা হলেও, বিষয়টিকে ভালভাবে নেননি খড়দহের তৃণমূল প্রার্থী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। তিনি সৌজন্য বিনিময় এবং আশীর্বাদ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। বলেছেন, সুস্থতা কামনা করা যেতেই পারে, কিন্তু কোনওভাবেই জয়ী হওয়ার আশীর্বাদ করতে পারেন না নন্দিতা সিনহা। প্রসঙ্গত কাজল সিনহা খড়দহে তৃণমূলের সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। এবারের বিধানসভা নির্বাচনে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতাও করেন। কিন্তু ভোটের মধ্যেই করোনা আক্রান্ত হন এবং ভোটের ফল ঘোষণার আগেই প্রয়াত হন। যদিও ওই কেন্দ্রের ফলাফলে তিনি বিজেপি প্রার্থীর থেকে এগিয়ে ছিলেন অনেক ভোটে।

এই কেন্দ্রের ফলাফল নিয়ে তাল ঠুকছেন অর্জুন সিং। বিজেপি প্রার্থীর জয় নিয়ে আশাবাদী অর্জুন সিং বলেছেন, ৮০ বছরের বৃদ্ধর সঙ্গে লড়াই করছেন ৩২ বছরে ভূমিপুত্র। এলাকার মানুষ জয়কেই জয়ের মুখ দেখাবেন। তিনি জয়ের জেতার ব্যাপারে ২০০ শতাংশ নিশ্চিত বলেও মন্তব্য করেছেন। অন্যদিকে বিজেপি প্রার্থী জয় সাহা শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়কে বহিরাগত অ্যাখ্যা দিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, খড়দহ থেকে ৩০ কিমি দূরে থাকেন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। এই কেন্দ্র থেকে শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় জিতলে মানুষ তাঁর অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিয়েও দেখা করতে পারবেন না বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। সেই কারণে ভূমিপুত্র হিসেবে তাঁকেই জয়ী করার আহ্বান জানিয়েছেন জয় সাহা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here