আনন্দ মুখোপাধ্যায় :: সংবাদ প্রবাহ :: নয়াদিল্লি :: হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় সস্ত্রীক নিহত হয়েছেন ভারতের প্রতিরক্ষাবাহিনীর প্রধান বিপিন রাওয়াত। ওই দুর্ঘটনায় বিপিন রাওয়াত আর স্ত্রী মধুলিকা রাওয়াতসহ ১৩ জন আরোহী নিহত হয়েছেন। ওই হেলিকপ্টারের একমাত্র জীবিত আরোহী গ্রুপ ক্যাপ্টেন বরুণ সিংহ তামিলনাড়ুর ওয়েলিংটনের সেনা হাসপাতালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভর্তি রয়েছেন বলে এনডিটিভির খবর ।

বিপিন রাওয়াত স্বাধীন ভারতের সামরিক ইতিহাসে সশস্ত্র বাহিনীর তিন শাখার সর্বাধিনায়ক হওয়ার কৃতিত্বের অধিকারী। ২০২০ সালের ১ জানুয়ারি এই পদে নিযুক্ত হন তিনি।১৯৫৮ সালের ১৬ মার্চ উত্তরাখণ্ডের পৌড়ীর এক গঢ়ওয়ালি রাজপুত পরিবারের জন্ম বিপিনের। তার পরিবারে সেনাবাহিনীতে যোগদানের ইতিহাস পুরুষানুক্রমিক। বাবা লক্ষ্মণ সিংহ রাওয়ত ছিলেন ভারতীয় সেনার লেফটেন্যান্ট জেনারেল। সেই রীতি মেনেই সেনায় যোগদান করেন রাওয়াত।

তার স্ত্রী মধুলিকা রাওয়াত ছিলেন মধ্যপ্রদেশের প্রয়াত রাজনীতিবিদ মৃগেন্দ্র সিংয়ের মেয়ে। দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মনোবিজ্ঞানে স্নাতক করেছেন তিনি।স্বামী সেনার সর্বাধিনায়ক হওয়ার সুবাদে মধুলিকা ছিলেন ‘ডিফেন্স ওয়াইভস ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন’এর সঙ্গে যুক্ত।মধুলিকা রাওয়াত ভারতের অন্যতম বড় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘আর্মি ওয়াইভস ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন’ এর সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন।

মৃত সেনা সদস্যদের স্ত্রী ও সন্তানদের জন্য বিভিন্ন কল্যাণমূলক কর্মসূচিতে নিয়মিত দেখা যেত মধুলিকাকে। মৃত সেনা সদস্যদের স্ত্রীদের স্বাবলম্বী করে তুলতে এই সংগঠন বিউটিশিয়ান কোর্স চালায়। এ ছাড়াও কেক ও চকোলেট বানানো শেখানো হয়। সেই সব কাজে যুক্ত ছিলেন মধুলিকা।বিপিন ও মধুলিকা দম্পতির দুই মেয়ে রয়েছে ।