বুধবার সকালে না ফেরার দেশে পাড়ি দিলেন অবিভক্ত বারুইপুর বিধানসভা কেন্দ্রের প্রাক্তন বিধায়ক ললিত গায়েন ।

সুদেষ্ণা মন্ডল :: সংবাদ প্রবাহ :: বারুইপুর :: দীর্ঘদিন বার্ধক্যজনিত রোগ ভোগের পর বুধবার সকালে না ফেরার দেশে পাড়ি দিলেন অবিভক্ত বারুইপুর বিধানসভা কেন্দ্রের প্রাক্তন বিধায়ক ললিত গায়েন । এই মৃত্যুর খবরে গভীর শোকের ছায়া নেমে এসেছে বিধায়কের বাসভূমি চম্পাহাটি সহ গোটা বারুইপুরের তৃণমূল শিবিরে ।

অবিভক্ত ১৮০ নম্বর বারুইপুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে ১৯৭২ সালে সিপিআইএম কে পরাজিত করে কংগ্রেস মনোনীত প্রার্থী ললিত বাবু বিধায়ক নির্বাচিত হন । ১৯৭৮ সাল পর্যন্ত বিধায়ক হিসাবে সুনামের সাথে এলাকার বিভিন্ন উন্নয়ন মুখি কাজে মনোনিবেশ করেন । একদিকে দক্ষ সংগঠক আর অন্যদিকে জনদরদী নেতা হিসেবে জায়গা করে নেন সকলের মধ্যে ।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে তৃণমূল কংগ্রেসের জন্ম নিলে ললিত বাবু যোগ দেন নতুন দলে । দলের হয়ে নিয়মিত অক্লান্ত পরিশ্রম করার পাশাপাশি নিবিড় যোগাযোগ রাখতেন দলীয় কর্মীদের সাথে । সকালেই খবর পাওয়ার পর দলের প্রাক্তন সৈনিককে শেষ দেখতে হাজির হন বারুইপুর পূর্বের বিধায়ক বিভাস সরদার , বারুইপুর পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি শ্যামসুন্দর চক্রবর্তী সহ বারুইপুর এর তৃণমূল নেতৃত্ব ।

এই খবর পাওয়ার পর শোকস্তব্ধ হয়ে পড়েন বারুইপুর পশ্চিম এর বিধায়ক তথা রাজ্য বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় । পাশাপাশি শোক জ্ঞাপন করেন ললিত বাবুর একসময়ের সহকর্মী শিখরবালি ১ নম্বর পঞ্চায়েতের তৃণমূলের সভাপতি অধীর চন্দ্র মন্ডল , শিখরবালি ২ নম্বর পঞ্চায়েতের সভাপতি জহর বিশ্বাস , মদাররাট পঞ্চায়েতের সভাপতি পালন সর্দ্দার সহ আরো অনেকেই ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

18 − five =