নিউজ ডেস্ক :: সংবাদ্প্রবাহ :: বেন্গালোরু ::  দক্ষিণ ভারতের বেঙ্গালুরু শহরের কমলা নগরের একটি চারতলা ভবন হঠাৎ একদিকে হেলে পড়ে। গতকাল মঙ্গলবার রাতে বিষয়টি খেয়াল করার পরই ভবনের বাসিন্দাদের পক্ষ থেকে কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়। এরপর রাতেই পদক্ষেপ নেয় কর্তৃপক্ষ। সব বাসিন্দাদের ভবনটি থেকে সরিয়ে ফেলা হয়। পরে কর্তৃপক্ষ ভবনটি ভেঙে ফেলে। গত সপ্তাহেই এভাবে ঝুঁকে পড়া আরও একটি ভবন ভাঙা হয়েছিল বেঙ্গালুরুতে।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, ভবনটি ভাঙার সময় অগ্নিনির্বাপণ এবং জরুরি সেবা বিভাগের কর্মীর সঙ্গে পুলিশও ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিল। ভবনটি ছিল বুরুহাট বেঙ্গালুরু মহানগরা পালিকে আবাসিক কর্তৃপক্ষের অধীনে। তাদের পক্ষ থেকে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, ভবনটি এবং এর আশপাশে যারা বাস করত, তাদের সবাইকে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। প্রতিটি পরিবারের খাবার ও থাকার ব্যবস্থাও করা হয়েছে।

ভবনটি হেলে পড়ার জন্য ভারী বৃষ্টি ও ভবনের দুর্বল অবকাঠামোকে দায়ী করছেন কর্মকর্তারা। এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, মিউনিসিপ্যাল করপোরেশন ভেঙে ফেলার জন্য ২৬টি ভবনের তালিকা করেছিল। হেলে পড়ার পর গত রাতে ভেঙে ফেলা ভবনটিও ছিল সেই তালিকায়।

গত সোমবার ব্যাপক বৃষ্টি হয়েছে বেঙ্গালুরুতে। এতে করে শহরজুড়ে বন্যা পরিস্থিতির তৈরি হয়েছে। গত রোববারও সেখানে ভারী বৃষ্টি হয়েছিল। এতে অনেক জায়গায় গাছ উপড়ে যায়। জল বন্দী হয়ে পড়ে নগরের অনেক বাসিন্দা। শহরের বিভিন্ন সড়কও ওই দিন বৃষ্টির জলে  তলিয়ে যায়।

গত বৃহস্পতিবার বেঙ্গালুরুর কাস্তুরি নগর এলাকাতে একই কারণে তিনতলা একটি ভবন ভেঙে ফেলেছিল কর্তৃপক্ষ। এমন ঘটনা হামেশাই ঘটছে সেখানে। এনডিটিভি জানিয়েছে, গত দুই সপ্তাহের মধ্যে বেঙ্গালুরুতে এভাবে চারটি ভবন ভেঙে ফেলা হয়েছে। সবগুলো ভবনই হেলে পড়েছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here