সুদেষ্ণা মন্ডল :: সংবাদ প্রবাহ :: গঙ্গাসাগর :: নিম্নচাপ ও অমাবস্যা কোটালের জেরে নদী বাঁধ ভেঙে রাতেই প্লাবিত হয়েছিল গোটা এলাকা। স্থানীয় পঞ্চায়েত এর পক্ষ থেকে ১০ পরিবারকে উদ্ধার করে রাখা হয়েছিল একটি স্কুলে। সকাল থেকেই গঙ্গাসাগরের শুরু হয়েছে বৃষ্টি। আর বৃষ্টিতে ধুয়ে গলতে শুরু করেছে মাটির নদী বাঁধ। সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়ার দাপট ও সমুদ্রে দেখা দিয়েছে উত্তাল ঢেউ। নতুন করে গ্রামের মধ্যে প্রবেশ করতে পারে নদীর নোনা জল।

নোনা জলের হাত থেকে নিজেদের কৃষি জমি ও নিজেদের বসতভিটে বাঁচাতে তাই তড়িঘড়ি নদী বাঁধ সংস্কারে হাত লাগিয়েছে স্থানীয় গ্রামবাসীরা। রবিবার রাতে গঙ্গাসাগরের মহিষামারি গ্রামের নদী বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয় গোটা এলাকা। জলে বন্দি হয়ে পড়ে প্রায় দশটি পরিবার। স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা উদ্ধার কাজে নেমে পড়ে। ১০ টি পরিবারকে নিরাপদে উদ্ধার করে স্থানীয় মহিষামারি অবৈতনিক প্রাথমিক বিদ্যালয় রাখা হয়।

রাতের আতঙ্ক কাটিয়ে সকালে আবার নতুন আতঙ্কের সম্মুখীন হতে হয় গ্রামবাসীদের । সেই জন্য নিজের প্রচেষ্টায় প্রায় ৫ কিমি নদী বাঁধ মেরামত করতে নিজেরাই জোড়া কোদাল নিয়ে নেমে পড়ে কোমর বেঁধে। গ্রামবাসীদের দাবি, কোনো স্থায়ী নদী বাঁধ না থাকার কারণে বিভিন্ন সময়ে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে ভেঙে যায় মাটির নদী বাঁধ।

নদীর নোনা জল ঢুকে নষ্ট হয়ে যায় চাষের জমি। স্থায়ী নদী বাঁধ না থাকার কারণে একটু একটু করে নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে গ্রাম। আগামী দিনে গ্রামকে রক্ষা করতে দ্রুত স্থায়ী নদী বাঁধ একান্ত জরুরী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here