কুমার পঙ্কজ :: সংবাদ প্রবাহ টিভি :: ২৩শে জানুয়ারি :: নয়াদিল্লি ::

লাঠিচার্জ

এলোপাথাড়ি লাঠিচার্জ, মুহুর্মুহু জলকামানের সঙ্গে কাঁদানে গ্যাস। কংগ্রেসের কৃষি আইন বিরোধী মিছিল ঘিরে ব্যাপক লাঠিচার্জ। পুলিশের লাঠিচার্জে আহত হয় বহু কংগ্রেস সমর্থক। ধস্তাধস্তিতে আহত হয়েছেন বেশ কয়েক জন পুলিশকর্মীও। শান্তিপূর্ণ মিছিলে দলের সমর্থকদের প্রতি পুলিশের এই আচরণের নিন্দা জানিয়েছে কংগ্রেস।

বিতর্কিত কৃষি আইনের বিরোধিতায় এবং আন্দোলনকারী কৃষকদের সমর্থনে মধ্যপ্রদেশে দু’সপ্তাহব্যাপী প্রতিবাদ কর্মসূচির ঘোষণা করেছে কংগ্রেস। এরই অংশ হিসেবে শনিবার রাজধানী ভোপালে হাজার হাজার সমর্থকদের নিয়ে মিছিলে নামে কংগ্রেস। তাতে নেতৃত্ব দেন রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ।

কালে প্রথমে জওহর চকে কংগ্রেস সমর্থকরা জড়ো হয়ে রাজভবনের উদ্দেশে রওনা দেন। পরিকল্পনা ছিল, রাজ্যপাল আনন্দীবেন পটেলের বাসভবন ঘেরাও করে বিতর্কিত আইন তিনটি প্রত্যাহারের দাবি জানানো। সেই মতো বাসে চেপে দলীয় নেতৃত্বের সঙ্গে মিছিলে নেতৃত্ব দিতে দেখা যায় কমলনাথকে।

কিন্তু রাজভবনে যাওয়ার অভিমুখে মিছিল আটকে দেয় পুলিশ। ফিরে না গেলে বলপ্রয়োগ করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়। কিন্তু ব্যারিকেড ঠেলে এগোনোর চেষ্টা করে মিছিল। তাতেই কংগ্রেস সমর্থকদের উপর জলকামান প্রয়োগ করে পুলিশ। ভিড় ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাসের শেলও ফাটানো হয়। সেই সঙ্গে শুরু হয় এলোপাথাড়ি লাঠিচার্জ।পুলিশের এই আচরণের তীব্র নিন্দা করেছে কংগ্রেস। তাদের দাবি, স্থানীয় প্রশাসনের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে মিছিল বের করা হয়েছিল।

কেন্দ্রীয় আইনের বিরুদ্ধে দিল্লির সিংহু সীমান্তে এখনও অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন লাখ লাখ কৃষক। পাঞ্জাব, হরিয়ানা এবং উত্তরপ্রদেশ সীমান্তে প্রায় দু’মাস ধরে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে এখন পর্যন্ত মোট ১০ দফা বৈঠক করলেও কোনও সমাধান হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here