মালদায় মাস্ক পরতে বলায় পাল্টা পুলিশকে ধাক্কা গ্রেপ্তার করা হয় ওই তৃনমূল নেতাকে।

কুমার মাধব :: সংবাদ প্রবাহ :: মালদা :: মানুষকে সচেতন করতে প্রত্যেকদিন পথে নামছে পুলিশ। কেউ মাস্ক না পরলে নেওয়া হচ্ছে যথাযথ ব্যবস্থা। সেই অনুযায়ী এই দিন পথে নেমেছিল মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশ। মাস্ক পরে ছিলেন না শাসকদলের এক নেতা। তাকে মাস্ক পরতে বলায় পাল্টা পুলিশকে ধাক্কা দেন তিনি। তারপরেই গ্রেপ্তার করা হয় ওই নেতাকে।

ঘটনা নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর। যদিও পুলিশের এই ভূমিকা কে সাধুবাদ জানিয়েছেন শাসকদলের বিধায়ক তজমুল হোসেন। পাল্টা কটাক্ষ করতে ছাড়েনি বিজেপি। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য হরিশ্চন্দ্রপুরে। শুধু স্বাস্থ্য বিধি ভঙ্গ নয়,পুলিশের সঙ্গে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ার মামলাও দেওয়া হবে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

যদিও এই গ্রেফতারে চরম অস্বস্তিতে তৃণমূল। অন্যদিকে এই নিয়ে আসরে নেমেছে বিজেপি। তৃণমূলের এইসব নেতাদের জন্যেই মূলত করোনার সংক্রমণ হচ্ছে বলে অভিযোগ তাঁদের।

সাব ইন্সপেক্টর বিকাশ হালদার বলেন মাস্ক পরেছিলেন না তাই মাস্ক পরতে বলা হয়েছিল। পাল্টা ধাক্কাধাক্কি করেন। আমার কিছু বলার নেই। গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

হরিশ্চন্দ্রপুর তৃণমূল বিধায়ক তজমুল হোসেন বলেন,” রাজ্য জুড়ে বাড়ছে করোনা। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা অত্যন্ত জরুরী। তা কেও তৃণমূলের হোক বা অন্য কেউ স্বাস্থ্যবিধি না মানলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মুখ্যমন্ত্রী বারবার বলছেন মাস্ক পরতে, স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে। আমরাও সচেতনতা মূলক প্রচার চালাচ্ছি।”

পাল্টা কটাক্ষ করতে ছাড়েনি বিজেপি নেতা কিষান কেডিয়া বলেন,” নবান্ন থেকে ঘোষণা করছে এক কিন্তু বাস্তবে হচ্ছে আরেক। শাসকদলের নেতারাই নিয়ম মানছে না। যার ফল ভুগতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। তৃণমূলের জন্যই ছড়াচ্ছে করোনা।”

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 5 =