নিউজ ডেস্ক :: সংবাদ প্রবাহ ::কোলকাতা :: মন্ত্রিসভায় প্রথম রদবদল। মূলত বর্ষীয়ান মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের  মৃত্যু এবং অমিত মিত্র  নির্বাচিত না হওয়ার কারণেই এই রদবদল করা হয়েছে। পুলক রায় , মানস ভুঁইয়া , চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য , পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের  হাতে চার গুরুত্বপূর্ণ দফতরের ভার মুখ্যমন্ত্রী তুলে দিয়েছেন।

এবার বিধায়ক নির্বাচন হননি অমিত মিত্র। অসুস্থতার কারণে তিনি নির্বাচনে দাঁড়াতে চাননি। তাও তাঁকে মন্ত্রিসভায় অন্তর্ভুক্ত করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু তাঁর ছয়মাসের কার্যকালের মেয়াদ শেষ হয়েছে। সেই কারণে মুখ্যমন্ত্রী অর্থ দফতরকে নিজের হাতে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এছাড়াও অমিত মিত্রকে উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে। একইসঙ্গে চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যকে অর্থ দফতরের প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে।

দমদম উত্তর থেকে এবারের বিধানসভায় নির্বাচিত চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য পুর ও নগরোন্নয়ন দফতর, স্বাস্থ্য, ভূমি ও ভূমি সংস্কার দফতরের সঙ্গে বাড়তি দায়িত্ব হিসেবে অর্থ দফতরের প্রতিমন্ত্রী দায়িত্বও পালন করবেন তিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অর্থ দফতরের বড় সিদ্ধান্তগুলি নেবেন আর প্রতিদিনের কাজ দেখবেন চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রিসভায় জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতরের মন্ত্রী ছিলেন পুলক রায়। হাওড়ার উলুবেড়িয়া দক্ষিণ থেকে নির্বাচিত পুলক রায়কে এবার তাঁকে সেই সঙ্গে বাড়ি দায়িত্ব হিসেবে পঞ্চায়েত দফতরের কাজও দেখতে হবে।

এবার বিধানসভায় নির্বাচিত হওয়ার পরে মানস ভুঁইয়াকে জলসম্পদ দফতরের দায়িত্ব দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সবং থেকে এবারেও নির্বাচিত হওয়া মানস ভুঁইয়া ২০১১ সালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রথম মন্ত্রিসভাতেও জলসম্পদ দফতরের দায়িত্ব পেয়েছিলেন। এবার সেই সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে ক্রেতা সুরক্ষা দফতর। ক্রেতাসুরক্ষা দফতরের মন্ত্রী সাধন পাণ্ডে অসুস্থ হয়ে পড়ার পরে সেই দায়িত্ব গিয়ে পড়েছিল সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের ওপরে। কিন্তু সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণে সেই দফতরের দায়িত্ব এবার গেল মানস ভুঁইয়ার হাতে।

এবারের মন্ত্রিসভায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের হাতে শিল্প দফতরের দায়িত্ব তুলে দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার সেই সঙ্গে যুক্ত হয়েছে শিল্প পুনর্গঠন দফতর। বেহালা পশ্চিম থেকে নির্বাচিত পার্থ চট্টোপাধ্যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রথম মন্ত্রিসভাতেও শিল্প দফতরের দায়িত্ব পেয়েছিলেন। তবে দিনহাটা থেকে রেকর্ড ভোটে জেতা উদয়ন গুহ কিংবা শান্তিপুর থেকে জেলা টিম অভিষেকের সদস্য ব্রজকিশোর গোস্বামীর মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পাওয়া নিয়ে বিভিন্ন মহলে জল্পনা তৈরি হলেও, অন্তত এবারের জন্য তাঁরা মন্ত্রিসভায় জায়গা পেলেন না।