রাজ্য সরকারের দেওয়া স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড থাকা সত্ত্বেও নার্সিংহোমে চিকিৎসার জন্য টাকা চাওয়ার অভিযোগ

সুদেষ্ণা মন্ডল :: সংবাদ প্রবাহ :: পাথরপ্রতিমা :: রাজ্য সরকারের দেওয়া স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড থাকা সত্ত্বেও নার্সিংহোমে চিকিৎসার জন্য টাকা চাওয়ার অভিযোগ উঠল পাথরপ্রতিমা ব্লকের দিগম্বরপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের গদামথুরা হাসপাতাল মোড়ে ”সারদা মাতৃমঙ্গল সেবাকেন্দ্র নার্সিংহোম” কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। এর ফলে বিপাকে রোগীর পরিবার।

জানা গিয়েছে, পাথর প্রতিমার দিগম্বর পুরের বাসিন্দা বছর পয়ষট্টির এক বৃদ্ধা জগৎবালা মন্ডলের বাথরুমে পড়ে গিয়ে পা ভেঙে যায়। পরিবারের লোক জনেরা তাকে নিয়ে আসেন হাসপাতাল মোড়ে সারদা মাতৃমঙ্গল সেবাকেন্দ্র নার্সিংহোমে। বৃদ্ধার পায়ের অপারেশন খরচ স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের মাধ্যমে করা যাবে বলে নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ কাছ থেকে জানা যায়।

সেইমতো অপারেশন করা হয়। অপারেশনের পর রোগীর পরিবারের কাছে নার্সিংহোমের তরফ থেকে জানানো স্বাস্থ্য সাথীর কার্ডে ২৫ হাজার টাকা কাটা হয়েছে আরো ৩০ হাজার টাকা লাগবে।

আর তাতেই ভেঙে পড়ে পড়ে রোগীর পরিবার। অনেক কাকুতি মিনতি করার পর ১০ হাজার টাকা কমিয়ে ২০ হাজার টাকা দেওয়ার কথা জানায় নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ। অনেক কষ্টে ১০ হাজার টাকা জোগাড় করতে পারলেও বাকি ১০ হাজার টাকা জোগাড় করতে পারছেন না রোগীর পরিবার।

ছেলে গুরুপদ মন্ডল জানান, বিনামূল্যে চিকিৎসার খরচের জন্য রাজ্য সরকার স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড দিয়েছেন। সেই মত আমি আমার মাকে নার্সিংহোমে ভর্তি করাই। অপারেশনের পর নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ তরফ থেকে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড ছাড়া আরো ৩০ হাজার টাকা চেয়েছে। আমরা খুব গরীব।

অনেক অনুনয় বিনয় করার পর নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ ১০ হাজার টাকা কমিয়েছে। জিনিসপত্র বন্ধক রেখে কোনোক্রমে ১০ হাজার টাকা জোগাড় করেছি কিন্তু বাকি ১০ হাজার টাকা দেবো কি করে।

যদিও এই বিষয়ে ওই নার্সিংহোমের চিকিৎসক সুদীপ্ত সরকারের সাফাই , নার্সিংহোমের মালিক মারা যাওয়ার পর আমরা নার্সিংহোম চালাচ্ছি। স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের চিকিৎসা খরচ দীর্ঘদিন ধরে আমরা পাচ্ছি না। সরকারি তরফ থেকে যেটুকু পাচ্ছি তাতে আমাদের পক্ষে নার্সিংহোমে স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের অন্তর্ভুক্ত রোগীদের চিকিৎসা খরচ বহন করা সম্ভব হচ্ছে না। নিরুপায় হয়ে আমাদের রোগীর পরিবারের কাছে টাকা চাইতে হচ্ছে। আমাদের কিছু করার নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × two =