সাপ দিয়ে স্ত্রীকে হত্যা, যুবকের দুবার যাবজ্জীবন !

নিউজ ডেস্ক :: সংবাদ প্রবাহ :: বেন্গালোরু :: বিছানায় বিষধর কোবরা ছেড়ে দিয়ে স্ত্রীকে হত্যা করার অভিযোগে সুরুজ কুমার নামে একজন যুবককে দুবার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশের  একটি আদালত। পুলিশের তদন্তে জানা যায়, সুরুজ যৌতুকের জন্য স্ত্রী ও তাঁর পরিবারকে হয়রানি করছিলেন।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, ঘুমানোর সময় স্ত্রী উথরার বিছানায় গোখরা সাপ ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগে সুরুজকে গত সোমবার দোষী সাব্যস্ত করে ওই দণ্ডাদেশ দেন আদালত।গত বছর সাপের কামড়ে উথরা মারা যাওয়ার পর সুরুজ কুমারকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এর আগে উথরার মৃত্যুতে তাঁর পরিবার সুরুজের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ আনে।

গত বছরের মে মাসে ২৫ বছর বয়সী উথরাকে নিজ বাড়িতে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। বিছানায় একটি কোবরা তাঁকে দংশন করেছিল। এটিকে হত্যাকাণ্ড বলে সন্দেহ হয় তাঁর পরিবারের সদস্যদের। এর আগেও একবার সাপের কামড়ে সুস্থ হয়ে উঠেছিলেন তিনি। পুলিশ জানায়, সাপের কামড়ের দুটি ঘটনার পেছনেই সুরুজের হাত ছিল বলে তাদের তদন্তে উঠে আসে। এসব সাপ সংগ্রহে সুরুজকে সাহায্য করা এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তারের পর তিনি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এতে রহস্যের জট খোলে।

খবরে বলা হয়, এ হত্যাকাণ্ড নিয়ে পুলিশ আদালতে হাজার পৃষ্ঠার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। ওই প্রতিবেদনে হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনা ও তা বাস্তবায়নের কাহিনি বিস্তারিত তুলে ধরা হয়।

এদিকে আদালতে যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের সময় এটিকে ‘বিরল ঘটনার মধ্যেও বিরল’ বলে উল্লেখ করেন সরকারি কৌঁসুলি (পিপি)। তিনি সুরুজকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার দাবি করেন। এটি যে একটি বিরল ঘটনা, সে বিষয়ে বিচারকও একমত হন। তবে সুরুজকে দুবার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন তিনি। একই সঙ্গে পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 + three =