সুন্দরবনের নদীতে ছাড়া হল জিপিএস ট্র্যাকিং মেশিন বসানো বিরল প্রজাতির বাটাগুড় বাস্কা কচ্ছপ

সুদেষ্ণা মন্ডল :: সংবাদ প্রবাহ :: বারুইপুর :: সুন্দরবনের নদীতে ছাড়া হল ১০ টি আমেরিকান জিপিএস ট্র্যাকিং মেশিন বসানো বিরল প্রজাতির পূর্ণ বয়স্ক বাটাগুড় বাস্কা কচ্ছপ।প্রত্যেকটি কচ্ছপের বয়স ১০ বছর।বন দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে সুন্দরবনের ৭ টি ফরেস্ট ক্যাম্পের পুকুরে আছে প্রায় ৩৭০ টি এই বিরল প্রজাতির বাটাগুড় বাস্কা কচ্ছপ।বর্তমানে এই কচ্ছপের সংখ্যা খুবই কম।খুব একটা নদী নালায় দেখাও যায় না।

ফলে বাটাগুড় বাস্কা কচ্ছপের সব ধরনের তথ্য জানতে এই প্রথম আমেরিকান জিপিএস ট্র্যাকিং মেশিন বসানো হল কচ্ছপের পীঠে।কি ধরনের জলে থাকতে ভালোবাসে, গতিবিধির সহ একাধিক তথ্য উঠে আসবে এই মেশিনের মাধ্যমে।স্যাটেলাইটের মাধ্যমে এই মেশিন কাজ করবে।

সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্পের সজনেখালি ফরেস্ট ক্যাম্প থেকে ১০ টি বিরল প্রজাতির বাটাগুড় বাস্কা কচ্ছপ নিয়ে যাওয়া হয় ঝিলা ফরেস্ট ক্যাম্পে।সেখানেই এই ১০ টি বাটাগুড় কচ্ছপের পীঠে বসানো হয় আমেরিকান জিপিএস ট্র্যাকিং মেশিন।

তারপর শুরু হয় পরীক্ষা নিরীক্ষা কচ্ছপ গুলির।এরপর বাটাগুড় বাস্কা কচ্ছপ গুলিকে নিয়ে যাওয়া সুন্দরবনের চামটা এলাকায়।সেখানেই কচ্ছপ গুলিকে পরীক্ষা নিরীক্ষা করে বনকমীর্রা ছেড়ে দেয় নদীতে।এদিকে স্যাটেলাইটের মাধ্যমে ২৪ ঘন্টায় ৩ বার সিগন্যাল পাওয়া যাবে এই জিপিএস ট্র্যাকিং মেশিনের মাধ্যমে।ফলে আগামী দিনে অনেক তথ্য উঠে আসবে এই বিলপ্ত প্রায় বাটাগুড় বাস্কা কচ্ছপের।

এমনকি ভারতে এই প্রথম সুন্দরবনে বিরল প্রজাতির বাটাগুড় বাস্কা কচ্ছপের পীঠে জিপিএস ট্র্যাকিং মেশিন বসিয়ে নদীতে ছাড়া হল।সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্পের ফিল্ড ডিরেক্টর তাপস দাস জানান ১০ টি বাটাগুড় কচ্ছপের পীঠে জিপিএস ট্র্যাকিং মেশিন বসানো হয়।প্রত্যেকটি কচ্ছপের বয়স প্রায় ১০ বছর।ভারতে এই প্রথম বাটাগুড় বাস্কা কচ্ছপের পীঠে জিপিএস ট্র্যাকিং মেশিন বসিয়ে নদীতে ছাড়া হল।

এই কচ্ছপের এই প্রজাতিটি বর্তমানে প্রায় বিলুপ্তির পথে এবং বিরল প্রজাতির।ফলে আগামী দিনে বাটাগুড় বাস্কা কচ্ছপের সব ধরনের তথ্য উঠে আসবে এই ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে।স্যাটেলাইটের মাধ্যমে কচ্ছপ গুলির গতিবিধির তথ্যও উঠে আসবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seventeen + 8 =