নিজস্ব সংবাদদাতা :: সংবাদ প্রবাহ :: বর্ধমান :: কলকাতার হেয়ার স্কুলের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষকের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হল পূর্ব বর্ধমানের মেমারী থানার দেবীপুর এলাকার বাড়ি থেকে । মৃত শিক্ষকের নাম ড.সুনীল কুমার দাস ( ৬৩) । মানসিক অবসাদের জন্যই এই পরিণতি বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে । অবসরের তিন বছর পরেও মেলেনি পেনশনের টাকা ।

বারবার বিকাশ ভবন সহ উচ্চ কতৃপক্ষের কাছে গিয়েও পেনশন চালু করতে পারেননি ‌। সংসার চালাতে সমস্যা হচ্ছিলো । তার থেকেই মানসিকভাবে বেশ কিছুটা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন তিনি, বলে পরিবারের দাবি । গোটা ঘটনার খতিয়ে দেখছে মেমারী থানার পুলিশ ।

গত ২০১৯ সালে ” শিক্ষারত্ন ” সম্মান পেয়েছিলেন ড.সুনীল কুমার দাস । স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী সেই সম্মান তুলে দিয়েছিলেন শিক্ষকের হাতে । শিক্ষারত্ন শিক্ষকের এইভাবে মৃত্যুর ঘটনায় কার্যত হতবাক এলাকার বাসিন্দারা । গতকাল রাতে মেমারীর দেবীপুরের বাড়ি থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেহ উদ্ধার করে মেমারী থানার পুলিশ ।বুধবার মৃতদেহ ময়নাতদন্ত হয় বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।

মৃত শিক্ষকের দাদা শঙ্কর দাস জানিয়েছেন , বেশ কিছুদিন ধরেই মানসিক অবসাদের ছিলেন তার ভাই । বারবার পরিবারের সদস্যরা বুঝিয়েছেন আশ্বস্ত করেছেন । তারপর হঠা্ৎ করেই এই ঘটনা । ঘরের ভিতরে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে ।
পেনশনের জন্য বারবার দপ্তরে ঘুরে হয়রান হয়ে গেছিলো বলে দাবি তার । একই দাবি মৃত শিক্ষকের স্ত্রী’র ও । অবসাদ থেকেই মর্মান্তিক পরিণতি ।