ঘরে ঘরে যমজ, অদ্ভুত রহস্য বুকে নিয়ে পর্যটকদের টানে কেরলের এই গ্রাম

নিউজ ডেস্ক :: সংবাদ প্রবাহ ;; কোলকাতা :: হ্যাঁ, কেরলের এই গ্রামে আপনি বেড়াতে এলে আবিষ্কার করবেন, আসতে যেতে বহু যমজ মানুষেরা ঘুরে বেড়াচ্ছেন! ভারতে প্রতি ১ হাজার নবজাতকের মধ্যে ৯ জোড়া যমজ সন্তান। অথচ কেরলের এই গ্রামে তা প্রতি হাজারে ৪৫! আকারে নেহাতই ছোট্ট এই গ্রামে অন্তত ৪০০ জোড়া যমজ মানুষ বাস করেন। এমন অদ্ভুত পরিসংখ্যানে বিস্মিত গোটা বিশ্ব।

আপনি যদি কোদিনহি গ্রামে বেড়াতে আসেন, তাহলে প্রবেশের সময়ই আপনার চোখে পড়বে ‘ঈশ্বরের আপন যমজদের দেশে স্বাগত’। কোচি থেকে ১৫০ কিমি দূরে অবস্থিত এই গ্রামে ২ হাজার পরিবারের বাস। সমুদ্রের পাড়ে অবস্থিত ছোট্ট গ্রামটি চেহারা, চরিত্রে কেরলের যে কোনও গ্রামের মতোই প্রকৃতির আশীর্বাদে পুষ্ট। পাশাপাশি রয়েছে আরও এক আশ্চর্য আশীর্বাদ। ২০১৭ সালের হিসেবে ৪০০ জোড়া যমজ মানুষ থাকেন গ্রামে। আরেক সংবাদমাধ্যমের হিসেব বলছে, এখন তা বেড়ে ৪৫০ জোড়া হয়েছে। স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন জাগে, ব্যাপারটা কী? কেন এমন এই গ্রামে যমজদের এমন অবিশ্বাস্য আধিক্য?

এখনও পর্যন্ত পরিষ্কার কোনও কারণ খুঁজে পাননি বিজ্ঞানীরা। ২০১৬ সালের অক্টোবরে গবেষকদের এক বিরাট দল এসেছিল কোদিনহি গ্রামে। হায়দরাবাদের সিএসআইআর-সেন্টার ফর সেলুলার অ্যান্ড মলিকিউসার বায়োলজি, কেরল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিশারিজ অ্যান্ড ওশিয়ান স্টাডিজ থেকে শুরু করে লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয় ও জার্মানি থেকে গবেষকরা এসেছিলেন। তাঁরা এই গ্রামের বহু যমজের শহরীর থেকে লালারস ও চুলের নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে গিয়েছিলেন।

কিন্তু নমুনা সংগ্রহ করে দীর্ঘ গবেষণা চালিয়েও এখনও পর্যন্ত বিজ্ঞানীরা কোনও সিদ্ধান্তে উপনীত হতে পারেননি। তবে কয়েকটি কারণের কথা ভেসে উঠেছে। তবে তার সঙ্গে বৈজ্ঞানিক তথ্যপ্রমাণের কোনও সম্পর্ক নেই। কোনও কোনও ডাক্তারের অনুমান, জিনগত কারণ হয়তো রয়েছে। কিন্তু সেই সঙ্গে এমন কথাও উঠে এসেছে, যে এই গ্রামের জলহাওয়ায় এমন কোনও উপাদান হয়তো রয়েছে যা অনুঘটক হয়ে উঠেছে। সেই সঙ্গে গ্রামবাসীদের খাদ্যাভ্যাস থেকে আরও নানা রকম ব্যাখ্যা রয়েছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত মান্যতা পায়নি কোনওটিই। রহস্যের কুয়াশা থেকেই গিয়েছে ঈশ্বরের আপন দেশের এই আশ্চর্য গ্রামের উপরে।

ছবি ও সংবাদ সূত্র :: সংবাদ প্রতিদিন 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × 3 =