নীলকন্ঠ আর ওড়েনা কিন্তু বিসর্জনে ভাঁটা পড়েনি পুরোনো জৌলুসে ।।

সুদেষ্ণা মন্ডল :: সংবাদ প্রবাহ :: দক্ষিণ ২৪ পরগনা ::  চারিদিকে যেন বিষাদের সুর বাজে। উমা বাপের বাড়ি ছেড়ে স্বামীর বাড়ি চলে যাবে। চারিদিকে চলছে বিসর্জনের প্রস্তুতি। প্রাচীন প্রথা মেনে ২৮৮ বছর ধরে চলে আসছে মগরাহাটের বসু বাড়ির দুর্গাপুজো। অতীতে বিসর্জনে সময় জমিদাররা ওরাতেন নীলকন্ঠ পাখি। কালের নিয়মে সেই সকল নিয়ম এখন অতীত। এখন আর সেই নীলকন্ঠ পাখি ওড়ানো হয়না। অতীতে রুপোর চামর ও পাখা সহযোগী ৪০ জন বাহকদের কাঁধে দেবী দুর্গা প্রতিমার বিসর্জন করা হতো।

অতীতের নিয়ম ছিল এই নীলকন্ঠ পাখি কৈলাসে গিয়ে মহাদেবের কাছে বার্তা প্রেরণ করে যে উমার আগমন হচ্ছে স্বর্গে। অতীতের এই ধারণা ও প্রথা মেনে মগরাহাটের বসু পরিবারের দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনের নিয়ম চলে আসছে। এখন সেই নিয়ম কিছুটা  বদলেছে । কিন্তু ভাঁটা পড়েনি প্রাচীন জাঁকজমকের । এবছর ও পরিবারের সকল মহিলারা নিয়ম মেনে সিঁদুর খেলায় মেতে ওঠে ।

বসু পরিবার এর মহিলাদের কথায় এই দিনটির জন্য পরিবারের সবাই অধীর আগ্রহে বসে থাকে তারা । যে যেখানেই থাকুক না কেন পুজোর কদিন সকলে মিলিত হয় এই বসু বাড়িতে । অনাবিল আনন্দে মেতে ওঠে পরিবারের সকলে । আর বিসর্জনের দিন সিঁদুর খেলায় মেতে ওঠে পরিবারের সকল মহিলা । এই সিঁদুর খেলায় অতীতে যে জৌলুস ছিল সেই জৌলুস আজও বর্তমান রয়েছে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *